https://www.a1news24.com
১৮ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রাত ১১:৫১

‘ভারতে বেটিং কাণ্ডের তদন্তে উঠে এলো সাকিবের বোনের নাম’

ক্রীড়া প্রতিবেদক: ভারতে বহুল আলোচিত মহাদেব বেটিং অ্যাপ কেলেঙ্কারির তদন্তে চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে এসেছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে ও আজ তাক–এ প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের ছোট বোন জান্নাতুল হাসান ‘11wicket.com’ নামে একটি অনলাইন বেটিং (অনলাইনে বাজি ধরা) অ্যাপে বিনিয়োগ করেছেন।

গত বছর সেপ্টেম্বর মাসে মহাদেব বেটিং অ্যাপ নামক একটি অনলাইন গেমিং প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে বিপুল আর্থিক দুর্নীতির খোঁজ পায় ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। সেই ঘটনার তদন্তে ভারতের অনেক রথী-মহারথীর নাম উঠে আসে।

গতকাল রাতে ইন্ডিয়া টুডের অনলাইনে এবং আজ ‘আজ তাক’–এর অনলাইনে প্রকাশিত এ–সংক্রান্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মহাদেব বেটিং অ্যাপ তদন্তে গ্রেপ্তার করা হয়েছে দুই ব্যবসায়ী গিরিশ তালরেজা ও সুরুজ চোখানিকে। তদন্তকারী সংস্থা ইডি সূত্র জানিয়েছে, সুরুজ চোখানি কাঠমান্ডুতে একটি ক্যাসিনোয় ৪০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছিলেন। এর পাশাপাশি তিনি বাংলাদেশে 11wicket.com নামের একটি বেটিং অ্যাপে বিনিয়োগ করেন। এতে তাঁর অংশীদার ছিলেন বাংলাদেশের তারকা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানের বোন জান্নাতুল হাসান।

অনলাইন বেটিং অ্যাপে বোনের যুক্ততার এই অভিযোগ নিয়ে সাকিব আল হাসানের বক্তব্য জানতে তাঁর সঙ্গে গতকাল সন্ধ্যায় হোয়াটসঅ্যাপে যোগাযোগ করে গণমাধ্যম। সাকিব বিষয়টি নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাননি। এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে তাঁর বোন জান্নাতুলের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করা সম্ভব হয়নি।

বাংলাদেশে সাইবার অপরাধ নিয়ে কাজ করেন, এমন একাধিক সংস্থার কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আজ রাতে প্রথম আলোর কথা হয়। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলেন, ভারতীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরটি এখনো তাঁদের নজরে আসেনি।

এ–সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ বা তথ্যও এখনো পাননি বলে জানান ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার নাজমুল ইসলাম।

দেশে সাইবার নিরাপত্তা নিয়ে কাজ করে বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের প্রকল্প বিজিডি ই-গভ সার্ট। সার্ট সূত্রও বলছে, 11wicket.com নামের অনলাইন বাজির এই অ্যাপ সম্পর্কে তাদের ধারণা নেই।

অনলাইন বেটিং অ্যাপে বোনের যুক্ততার এই অভিযোগ নিয়ে সাকিব আল হাসানের বক্তব্য জানতে তাঁর সঙ্গে আজ সন্ধ্যায় হোয়াটসঅ্যাপে যোগাযোগ করে প্রথম আলো। সাকিব বিষয়টি নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাননি।

সাকিব আল হাসানও এর আগে আলোচনায় এসেছিলেন স্পট ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়েও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) দুর্নীতি দমন ইউনিটকে না জানানোয়। যার জন্য তিনি ২০১৯ সালের অক্টোবরে এক বছরের জন্য ক্রিকেটে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন। ২০২২ সালে বেটিং–সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান বেট উইনার নিউজের পণ্যদূত হয়েও বিতর্কে জড়ান তিনি। পরে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) চাপে সাকিব সেই চুক্তি থেকে সরে আসেন।

সাকিব আল হাসান গত ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে মাগুরা-১ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

আরো..