https://www.a1news24.com
২০শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রাত ১০:৫৫

বেইলি রোডের অগ্নিকাণ্ড: শোবিজ তারকারাও হতবাক

বিনোদন ডেস্ক: সন্ধ্যায় জমে উঠে বেইলি রোড। অভিজাত শপিং মলের জন্য সুনাম রয়েছে এই এলাকার। আছে হরেকরকম খাবারের সমাহার, বিনোদন। তাই নাগরিক ব্যস্ততার ফাঁকে মানুষ ছুটে যান সেখানে- খেতে, গল্প-আড্ডায় মশগুল হতে। বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) এমনই সন্ধ্যা নেমেছিল; কিন্তু শেষপর্যন্ত তা রূপ নিয়েছে ভয়াল রাতে, আগুনের ধ্বংসযজ্ঞে।

রাজধানীর বেইলি রোডের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পুরো দেশের মানুষ হতবাক হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। গুরুতর আহত হয়েছেন অন্তত ২২ জন। এ ঘটনায় নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সারা দেশের মানুষের মতো শোবিজ তারকারাও এ ঘটনায় বেশ মর্মাহত হয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তারকারা জানিয়েছেন এ নিয়ে নানা মন্তব্য।

মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনায় শোক জানিয়েছেন দেশের সিনেমার সবচেয়ে বড় তারকা শাকিব খান। ফেসবুকে দেওয়া এক শোকবার্তায় তিনি লিখেছেন, ‘বেইলি রোডে ঘটে যাওয়া ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের আগে সেখানে বেশিরভাগ মানুষ হয়তো গিয়েছিলেন তাদের প্রিয়জন নিয়ে আনন্দময় কিছু সময় ভাগাভাগি করতে। কেউ কেউ গিয়েছিলেন শপিং বা পরিবার-পরিজন নিয়ে ফ্রি টাইমে খাওয়া-দাওয়া করতে; কিন্তু এক নিমিষেই ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড থামিয়ে দিয়েছে এতগুলো জ্বলজ্যান্ত জীবন। স্বজন হারিয়ে অনেকের ভবিষ্যৎ জীবনে নেমে এসেছে ঘোর অমানিশা! অনেকের তিলে তিলে গড়ে তোলা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান শেষ হয়ে গেছে।’

শাকিব খান লিখেছেন, ‘কিছুদিন পরপর অগ্নিকাণ্ডের এত এত তরতাজা প্রাণ অকালে চলে যাওয়া এবং ক্ষয়ক্ষতি কোনোভাবে কাম্য নয়। এসব ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের নিষ্পত্তি হওয়া প্রয়োজন। আর জীবেনের ঝুঁকি নিয়ে যারা সবসময় এমন অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনা মোকাবিলা করে সাধারণ মানুষের জন্য জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েন, সেসব ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের জানাই স্যালুট!’

এমন মর্মান্তিক হতাহতের ঘটনায় হতবাক হয়েছেন অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরীও। তার প্রিয় শহরে এমন দুর্ঘটনা যেন কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না এ অভিনেতা। চঞ্চল তার সোশ্যাল মিডিয়ায় অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে যাওয়া এ ভবনের আগের ও এখনকার দুটি ছবি পাশাপাশি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘হায়রে বেইলি রোড’। এ ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আমরা আরণ্যক পরিবার শোকাহত।’ এ থেকে বোঝা যাচ্ছে, এমন ঘটনা চঞ্চল হতবাক হয়েছেন। তার এ পোস্টে ভক্তরাও দুঃখ ও শোক প্রকাশ করছেন।

অভিনেত্রী বিজরী বরকতউল্লা তার আইডিতে লিখেছেন, ‘আহা, বেইলি রোড! ছোটবেলা, স্কুল-কলেজের কত স্মৃতি! এই তো সেদিনও গেলাম খেতে। কী অদ্ভুত অনিশ্চিত জীবন। ‍দুর্ঘটনায় মৃত ব্যক্তিদের রূহের মাগফিরাত কামনা করি। আল্লাহ, স্বজনদের শোক বইবার শক্তি দাও।’

অপু বিশ্বাস লিখেছেন, ‘বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি। এ ধরনের মর্মান্তিক এবং বেদনাদায়ক ঘটনার যেন আর পুনরাবৃত্তি না ঘটে। ঈশ্বর সবার মঙ্গল করুন।’

শবনম বুবলী পোস্ট দিয়ে লিখেছেন, ‘বেইলি রোডের অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের বিদেহী আত্মার শান্তি ও মাগফিরাত কামনা করছি! মহান আল্লাহপাক ভুক্তভোগী পরিবারগুলোর সবাইকে এ শোক কাটিয়ে ওঠার শক্তি দান করুন!’

অভিনেতা রওনক হাসান লিখেন, ‘যে সড়কটা একদিন শিল্প ও শিল্পীর পদচারণায় মুখরিত ছিল, সেখানে তাদের হটিয়ে খাদ্য আর খাদকের ভাগাড়ে পরিণত করলে এই হয় পরিণতি! রেস্ট ইন পিস প্রিয় বেইলি রোড!’

জায়েদ খান লিখেছেন, ‘এতগুলো নিরীহ প্রাণ বিসর্জন হলো অগ্নিকাণ্ডে! দুঃখ প্রকাশের ভাষা নেই। আমাদের আরও সাবধানতা প্রয়োজন, বিশেষ করে সিলিণ্ডারের গ্যাস ব্যবহারের ক্ষেত্রে।’

অন্যদিকে বিদ্যা সিনহা মিম লিখেছেন, ‘এমন ২৯ ফেব্রুয়ারি আর কখনো যেন কারও জীবনে না আসে। বেইলি রোডের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় যারা মারা গেছেন তাদের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি।’

নাদিয়া আহমেদ লিখেন, ‘আহা বেইলি রোড! দুর্ঘটনায় মৃত ব্যক্তিদের রূহের মাগফিরাত কামনা করি। স্বজনদের শোক বইবার শক্তি দাও আল্লাহ।’

নিপুণ আক্তার লিখেন, ‘আল্লাহ তুমি তোমার সব বান্দাকে হেফাজতে রেখো!’

চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক লিখেন, ‘৪৬ জনের মৃত্যু আপনার কাছে খুব অল্প মনে হচ্ছে? একবার ভাবুন তো, এই ৪৬ জনের সঙ্গে কতশত হাজার জনের সখ্য-ভালোবাসার সম্পর্ক ছিল! আসুন আমরা সবাই সাবধান হই, বিবেকবান হই, সৎ হই, মানুষ হওয়ার চেষ্টা করি! মহান আল্লাহ আমাদের সবাইকে হেফাজতে করুন।’

জনপ্রিয় অভিনেত্রী মেহজাবীন চৌধুরী লেখেন, ‘বেইলি রোড’। শেষে দুঃখিত ও প্রার্থনার ইমোজি।

তাসনিয়া ফারিণ বেইলি রোডের আগুনে পুড়ে যাওয়া ভবনের আগে ও পরের ছবি দিয়ে ক্যাপশনে লেখেন, ‘বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি। আশা করি এই ঘটনা থেকে আমরা কিছু শিখতে পারব।’

তারকাদের আরও অনেকে শোক প্রকাশ করেছেন এ দুর্ঘটনায়। তাদের মধ্যে রয়েছেন অভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্ব, অভিনেত্রী রুনা খান, ফারিন খান, নির্মাতা অনন্য মামুন, চয়নিকা চৌধুরীসহ অনেকে।

আরো..