https://www.a1news24.com
২০শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রাত ১০:২৯

‘পুলিশ-ম্যাজিস্ট্রেসীর মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক ও সমন্বয় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ’

চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত, সিলেট এর কনফারেন্স হলে পুলিশ-ম্যাজিস্ট্রেসী কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (৩ এপ্রিল) বিকেল সাড়ে ৩টায় এই কনফারেন্সের আয়োজন করা হয়।

সিলেটের চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ড. আবুল হাসানাত এর সভাপতিত্বে ও সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আলমগীর হোসেনের সঞ্চালনায় উক্ত কনফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, সিলেটের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ এ. কিউ. এম নাছির উদ্দীন।

তিনি তার বক্তব্যে বলেন, পুলিশ ম্যাজিস্ট্রেসীর মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক ও সমন্বয় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। পুলিশের মাধ্যমে মামলার কার্যক্রম শুরু হয় এবং বিচার বিভাগের মাধ্যমে বিচার প্রক্রিয়া শেষ হয়। পুলিশ বিভাগসহ অন্যান্য সকল বিভাগের সহযোগিতায় বিচার কার্য সম্পন্ন হয়। এফআইর থেকে শুরু করে বিচার প্রক্রিয়ার শেষ পর্যন্ত বিচার কার্যে জড়িত প্রত্যেক বিভাগের সহযোগিতা কাম্য। যার যার বিভাগের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করলে দ্রুত মামলা নিষ্পত্তি ও ন্যায়বিচার করা সম্ভব।

কনফারেন্সের সভাপতি ড. আবুল হাসানাত তার বক্তব্যে বলেন- পুলিশ ম্যাজিস্ট্রেসী কনফারেন্সের মূল উদ্দেশ্য হলো ফৌজদারি বিচার ব্যবস্থা গতিশীল ও সক্ষম করে তোলা এবং দ্রুত ও সহজে ন্যায় বিচার প্রদান করা। বিচারকার্যের ৬০-৭০ শতাংশ কাজ পুলিশের সাথে। সেই কাজ করতে গিয়ে যেসকল সমস্যা পাওয়া যায় সেটি সমাধানের জন্য পুলিশ ম্যাজিস্ট্রেসী কনফারেন্স। বিচার কার্যে জড়িত অন্যান্য সংস্থাও বিভিন্নভাবে সহায়তা করেন। ন্যায়বিচার নিশ্চিতে সবার নিজ নিজ জায়গা হতে কাজ করতে হবে। মামলার শুরু থেকে শেষ পর্যায়ে সবার সহযোগিতায় বিচার কার্যে গতি এনে দেয়। তিনি যার যারা অবস্থান থেকে গুরুত্বের সাথে কাজ করে বিচারকার্যে গতি বাড়াতে সবার সর্বাত্মক সহযোগিতা কামনা করেন।

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন থানা কর্তৃক আদালতে সাক্ষী হাজিরের পরিসংখ্যান ও অন্যান্য তথ্য উপস্থাপন করেন কনফারেন্সের ফোকাল পার্সন ও সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আবদুল ওয়াহাব। এছাড়া বিচারকার্যে বিভিন্ন সমস্যা ও প্রতিবন্ধকতার বিষয়ে আলোকপাত করে বক্তব্য রাখেন সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নূসরাত তাসনিম। কনফারেন্সে অন্যান্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি মোঃ রওশনুজ্জামান সিদ্দিকী, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ইমরুল হাসান। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত ডিআইজি, সিআইডি সুজ্ঞান চাকমা, বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মোঃ হুমায়ুন কবির, ম্যাজিস্ট্রেট (যুগ্ম জেলা জজ), বিদ্যুৎ কোর্ট মোঃ আনোয়ারুল হক, অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট অঞ্জন কান্তি দাস, সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দিলরুবা ইয়াছমিন, আবিদা সুলতানা মলি, জুডিসিয়াল কাজী মোঃ আবু জাহের বাদল, সিলেটের পাবলিক প্রসিকিউটর এডভোকেট মোঃ নিজাম উদ্দিন, জেলা বারের সভাপতি অশোক পুরকায়স্থ, সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইমার্জেনিন্সি মেডিকেল অফিসার ও কো-অর্ডিনেটর ডা. মোঃ বদরুল আমিন, সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডা. স্বপ্নীল সৌরভ রায়। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সিলেটের সিনিয়র জেল সুপার, সিলেট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার, থানার অফিসার ইনচার্জগণ, ডিবি’র অফিসার ইনচার্জসহ বিভিন্ন দপ্তরের প্রতিনিধিগণ। বিজ্ঞপ্তি

আরো..