https://www.a1news24.com
৩০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, সন্ধ্যা ৭:৪০

উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীর সঙ্গে গোপন বৈঠক, ৫ প্রিসাইডিং কর্মকর্তা গ্রেফতার

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী রিয়াজ উদ্দিনের সঙ্গে গোপন বৈঠকের অভিযোগে পাঁচজন প্রিসাইডিং কর্মকর্তাসহ ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোমবার (৬ মে) রাত সাড়ে ৯টার দিকে সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের হলরুমে এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান জেলা প্রশাসক মীর মাহবুবুর রহমান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) আরিফুর রহমান মণ্ডল বিপিএম, পিপিএম এবং রিটার্নিং ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম।

গ্রেফতার প্রিসাইডিং কর্মকর্তারা হলেন যমুনা ডিগ্রি কলেজের সহকারী অধ্যাপক ও রাশিদাজ্জোহা সরকারি মহিলা কলেজ ভোটকেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম, এসবি রেলওয়ে কলোনি উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ ও ওমর আলী কওমি মহিলা মাদরাসা কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা আশরাফুল ইসলাম, সিরাজগঞ্জ পুলিশ লাইন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রভাষক ও এসবি রেলওয়ে কলোনি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা আবুসামা, বাহুকা ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক ও বনবাড়িয়া পাইকপাড়া মডেল স্কুল কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা বাচ্চু কুমার ঘোষ, জনতা ব্যাংক পিএলসি শহরের এসবি ফজলুল হক সড়ক শাখার সিনিয়র প্রিন্সিপাল কর্মকর্তা ও হরিণা বাগবাটি স্কুল কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা ইয়াসিন আরাফাত।

এছাড়া বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতি সিরাজগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি ও শিয়ালকোল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আমিনুর ইসলামকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, প্রিসাইডিং কর্মকর্তা ও চেয়ারম্যান প্রার্থীর গোপন বৈঠকের ঘটনায় আটজনের নাম উল্লেখসহ আরও অজ্ঞাত ২০ জনের বিরুদ্ধে সদর থানায় মামলা হয়। এ মামলায় পাঁচজন প্রিসাইডিংসহ গোপন বৈঠকের মূলহোতা শিক্ষক নেতা আমিনুর ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এর আগে রোববার (৫ মে) রাত ৯টার দিকে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার কালিয়া হরিপুর ইউনিয়নের বনবাড়িয়া কাদাই গার্ডেন প্যালেস রিসোর্টে প্রিসাইডিং কর্মকর্তাদের নিয়ে চেয়ারম্যান প্রার্থী রিয়াজ উদ্দিনের গোপন বৈঠকে মিলিত হন। এমন খবর পেয়ে জেলা-উপজেলা প্রশাসন ঘটনাস্থলে হাজির হলে প্রিসাইডিং ও চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকরা ছোটাছুটি করে পালিয়ে যান। এরপর পার্কে দীর্ঘ আড়াই ঘণ্টা অভিযান চালিয়ে প্রিসাইডিং ও চেয়ারম্যান প্রার্থীকে পাওয়া যায়নি। পরে প্রশাসন প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পার্কের ম্যানেজারসহ তিনজনকে থানা হেফাজতে নেওয়া হয়। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদ ও সিসিটিভির ফুটেজের ভিত্তিতে ঘটনার সত্যতা পায় প্রশাসন। পরে রাতে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে আটজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ২০ জনের বিরুদ্ধে সদর থানায় মামলা করেন।

এদিকে ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের সঙ্গে গোপন বৈঠক করে অর্থ লেনদেনের চেষ্টা করার অভিযোগ চেয়ারম্যান প্রার্থী রিয়াজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা নেওয়া হবে না তা জানতে সোমবার (৬ মে) সকালে নোটিশ দেওয়া হয়েছে। নোটিশে আগামী ১২ ঘণ্টার মধ্যে সশরীরে উপস্থিত হয়ে লিখিত ও মৌখিকভাবে জবাব দিতে বলা হয়েছে। অন্যথায় উপজেলা পরিষদ বিধিমালা ২০১৩ ও উপজেলা পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬ অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে বলে নোটিশে উল্লেখ করা হয়।

প্রথম ধাপে আগামী বুধবার (৮ মে) এই উপজেলায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। মোট পাঁচজন চেয়ারম্যান প্রার্থী এই নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন।

আরো..